খেলাধুলাগাইবান্ধাগাইবান্ধা সদর

দেশের প্রথম নারী সেঞ্চুরিয়ান গাইবান্ধার শারমিন সুপ্তা

ক্রিকেটে যে কোন প্রথমের গুরুত্বই আলাদা, তেমনই এক প্রথমের দেখা পেলেন বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের ব্যাটার গাইবান্ধার মেয়ে শারমিন আক্তার সুপ্তা। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে তুলে নিয়েছেন দুর্দান্ত সেঞ্চুরি, যেটি বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটের ওয়ানডে ইতিহাসেরই প্রথম সেঞ্চুরি।

নামে ভারে যুক্তরাষ্ট্র বড় কোন প্রতিপক্ষ না হলেও সেঞ্চুরি হাঁকানো সব সময়ই কঠিন ব্যাপার, মেয়েদের ক্রিকেটে সেটা আরও একটু বেশিই কঠিন। কতটা কঠিন সেটা পরিসংখ্যানই বলে দিবে, শারমিন আক্তার সুপ্তার আগে সেঞ্চুরি হাঁকাতে পারেননি আর কোন টাইগ্রেস ব্যাটার।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে হারারের সানরাইজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ, ব্যাট করতে নেমে টাইগ্রেসদের দারুণ শুরু এনে দেন দুই ওপেনার শারমিন আক্তার ও মুর্শিদা খাতুন। ৫৬ বলে ৪৭ রান করা মুর্শিদার বিদায়ে ভাঙে ৯৬ রানের উদ্বোধনী জুটি।

অধিনায়ক নিগার সুলতানার সাথে ৪৮ রানের জুটি গড়েন শারমিন, রান আউটে কাটা পড়ার আগে ২৬ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলেন নিগার সুলতানা। ফারজানা হককে নিয়ে আরও ১৩৭ রান যোগ করে দলকে বড় স্কোর এনে দেন শারমিন আক্তার, তুলে নেন ফিফটিও। ৬২ বলে ৬৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ফারজানা ফিরলেও সেঞ্চুরি তুলে নেন শারমিন।

টারা নোরিসের বলে সিঙ্গেল নিয়ে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন শারমিন আক্তার, ১২০ বলে সেঞ্চুরি হাকিয়ে ইতিহাসে নাম লেখান টাইগ্রেস এই ব্যাটার। রুমানা আহমেদ ও রিতু মনি দ্রুত ফিরলেও শারমিনের ব্যাটে বিশাল স্কোরের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।

এখন থেকে মেয়েদের ক্রিকেটে প্রথম সেঞ্চুরিয়ান হিসেব শারমিন আক্তার সুপ্তার নামটিও ইতিহাসে জ্বলজ্বল করবে।

সুপ্তা ১৯৯৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর গাইবান্ধায় জন্মগ্রহণ করেন। ছোটবেলা থেকেই সুপ্তা যেমন খেলাধুলায় হয়েছেন চ্যাম্পিয়ন, তেমনি পড়াশুনাও চালিয়েছেন সমানতালে। গাইবান্ধা জেলা সদরের রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের মৃত আব্দুস সালামের কন্যা অজপাড়াগায়ে বেড়ে উঠা সুপ্তা ছোটবেলা থেকেই ছিলেন চঞ্চল প্রকৃতির।

২০০৬ সালে প্রাইমারির গন্ডি পেরিয়ে ভর্তি হন উচ্চ মাধ্যমিকে। স্কুলে একবার ব্যাডমিন্টন খেলার আয়োজন হয়।সেখানেই চ্যাম্পিয়ন হয়েই মূলত খেলাধুলায় নিয়মিত হন তিনি। সুপ্তা পড়ছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগে। শারমিন আক্তার সুপ্তাএকজননারী ক্রিকেটার হিসেবেবাংলাদেশ জাতীয় নারী ক্রিকেট দলেরহয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে থাকেন। তিনি একজন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। তিনি শুরু থেকেই জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলছেন। ডানহাতি ব্যাট করা এ খেলোয়াড়ের ২০ বছর বয়সেই রয়েছে অনেক কীর্তি। খেলেছিলেন টি-টোয়েন্টি ২০১৬ বিশ্বকাপে।

জানা যায়,বাবলু নামের স্থানীয় একজন কোচের সাথে পরিচয় হয় তার। তিনিই তাকে ক্রিকেট খেলার কথা বলেন। যিনি তাকে বলেন বিকেএসপির কথা, যেখানে পড়াশুনার পাশাপাশি খেলাধুলাও করা যায়। কিন্তু অনেক কষ্টে একজন মেয়ে হয়ে প্রথমে বাবাকে রাজি করিয়েছেন,কিন্তু মাকে রাজি করানো যায়নি। তবে পরে সবাইকে রাজি করিয়ে ২০০৮ সালের ১৭ এপ্রিল ভর্তি হন বিকেএসপিতে। প্রথমদিকে মা বাবাকে ছেড়ে ভাল লাগত না তার। কিন্তু মাকে তো আর বলা যায় না। বললেই তো বাধ্য হয়ে বাড়ি যেতে হবে। তখন নিজেকে তিনি মানিয়ে নিয়েছেন সবার মাঝে।

আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম খেলেন প্রিমিয়ার লীগে। সেখান থেকেই ভালো পারফরমেন্স করে ২০১১ সালে সবচেয়ে কমবয়সী হিসেবে চান্স পান জাতীয় দলে। ওডিয়াই স্ট্যাটাস পাওয়ার পর প্রথম ম্যাচ হয় আয়ারল্যান্ড এর সাথে। প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে তিনি করেন ৫৩ রান। মহিলা দলের প্রথম অর্ধশত রানকারী হিসেবে তার নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা হয়। ২০১৩ বিকেএসপির সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন তিনি। এর পরে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

সুত্র: আমারজেলা ডট নিউজ |

Back to top button