গাইবান্ধাগাইবান্ধা সদর

জেলার উন্নয়নে সাংবাদিকদের ইতিবাচক ভূমিকা প্রয়োজন- জেলা প্রশাসক

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক মো. অলিউর রহমান বলেছেন, জেলার সামগ্রিক উন্নয়নে সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ ইতিবাচক ভূমিকা প্রয়োজন। তিনি গাইবান্ধায় সাংবাদিকতার উজ্জ্বল ইতিহাসের প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, এই ঐতিহ্যকে সমুন্নত রাখতে হবে। তিনি আরও বলেন, সাংবাদিকরা জনগণের কল্যাণে কাজ করে। তারা যাতে তাদের কর্মক্ষেত্রে কোনরূপ সমস্যার মুখে না পড়ে সেদিকটাও সবাইকে দেখতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) দৈনিক যুগান্তরের ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গাইবান্ধা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে কেক কাটা ও আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। যুগান্তরের পাঠক ফোরাম স্বজন সমাবেশ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

গাইবান্ধা প্রেসক্লাব সভাপতি কেএম রেজাউল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা পর্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দৈনিক যুগান্তরের জেলা প্রতিনিধি গোবিন্দলাল দাস, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য আমিনুল ইসলাম গোলাপ, জেলা সিপিবির সাবেক সভাপতি ওয়াজিউর রহমান রাফেল, জেলা বারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম বাবু, প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ নুরুল আলম জাহাঙ্গীর প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি অধ্যাপক অমিতাভ দাশ হিমুন।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, গত ২৩ বছরে দৈনিক যুগান্তর সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে কোনো আপোষ করেনি। সাহসিকতার সঙ্গে প্রকৃত তথ্য সম্বলিত সংবাদ পাঠকের সামনে উপস্থাপন করেছে। পাঠক প্রিয় এই সংবাদপত্র সংবাদকর্মীদের জন্য অনুপ্রেরণার উৎস হতে পারে।

এর আগে জেলা প্রশাসককে গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান, প্রেসক্লাব সভাপতি কেএম রেজাউল হক। এছাড়া যুগান্তর প্রতিনিধি ও স্বজন সমাবেশের পক্ষ থেকেও তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি দীপক কুমার পাল ও নুরুজ্জামান প্রধান, বেসরকারি সংগঠন অবলম্বনের নির্বাহী পরিচালক প্রবীর চক্রবর্ত্তী, সাংবাদিক উত্তম সরকার, উজ্জল চক্রবর্ত্তী, কুদ্দুস আলম, জাহাঙ্গীর আলম, এবিএম ছাত্তার, খায়রুল ইসলাম, ফেরদৌস জুয়েল, রিকতু প্রসাদ, রেজাউল হক মিতা, আবু কায়সার শিপলু, মমতাজুল ইসলাম লিয়াকত, ফজলে রাব্বি মন্ডলসহ অন্যরা।

Back to top button