গাইবান্ধাগাইবান্ধা সদর

গাইবান্ধা শহর রক্ষা বাঁধ সংস্কারে গাছ কাটায় ক্ষোভ

গাইবান্ধা শহর রক্ষা বাঁধ সংস্কারের নামে ঘাঘট নদীর দুপাশের বেশ কিছু গাছ কেটে ফেলছে কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পরিবেশবাদীরা।

১৬ বছর আগে গাইবান্ধা শহর রক্ষায় বাঁধের দুপাশে দীর্ঘ এলাকাজুড়ে মেহগনিসহ কয়েকশ গাছ রোপণ করে বনবিভাগ। সম্প্রতি বাঁধ সংস্কারের কারণ দেখিয়ে প্রায় দেড় কিলোমিটার অংশের গাছ কেটে ফেলার উদ্যোগ নেয় কর্তৃপক্ষ।

এ নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন। তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতারা। তারা বলছেন, গাছগুলো না কেটেও বাঁধ সংস্কার করা যেতো। জেলার পরিবেশ আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জনি বলেন, ‘সারাবিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে যে সমস্যার মুখোমুখী আমাদের হতে হচ্ছে সেটাকে ঠেকানোর জন্য আমরা অন্দোলন করে যাচ্ছি। সেখানে নদীর বাঁধ সংস্কারের নাম করে এভাবে গাছগুলো কাটা হচ্ছে এটা অত্যন্ত দু:খজনক।’

তবে, বন বিভাগের কর্মকর্তা বলছেন, সামাজিক বনায়ন কর্মসূচির আওতায় বনবিভাগ, উপকারভোগী ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের ত্রিপাক্ষিক চুক্তি অনুযায়ী ১০ বছর পূর্ণ হলে ও উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জন্য গাছ কাটার নিয়ম আছে। জেলা বনবিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুস সবুর বলেন, ‘তিন চার বছর আগে কোথাও গাছ লাগানো হলে সেখানে যদি আবার উন্নয়নের দরকার হয় তাহলে এ সম্পর্কিত কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমরা গাছ কাটতে পারব।’

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান জানান, মাটির নিচে গাছের শেকড় থাকায় বাঁধ সংস্কারে সমস্যা হচ্ছে। তাই, বিধি মেনে টেন্ডারের মাধ্যমে গাছ কেটে বিক্রির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

Back to top button